‘মূল স্বার্থে’ রাশিয়াকে ‘দৃঢ় সমর্থন’ দেবে চীন: শি জিনপিং

0
44

অনলাইন ডেস্ক: চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, দ্বিপক্ষীয় মূল স্বার্থ সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে মস্কোর প্রতি ‘দৃঢ় সমর্থন’ দিয়ে যাবে তার দেশ। যদিও তার দেশের ওপর পাশ্চাত্যের চাপ অব্যাহত রয়েছে।

এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে মস্কো টাইমস। এতে বলা হয়েছে, বেইজিং সফররত রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিশুস্তিনের সঙ্গে এক বৈঠকে চীন সরকারের এ অবস্থানের কথা জানান জিনপিং।

শি জিনপিং বলেন, বেইজিং ও মস্কোকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ‘উচ্চ পর্যায়ের’ সহযোগিতা চালিয়ে যেতে হবে। দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও পুঁজি বিনিয়োগ সংক্রান্ত সহযোগিতা শক্তিশালী করারও আহ্বান জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন ও রাশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক সহযোগিতা অন্যরকম উচ্চতায় পৌঁছেছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযানকে কেন্দ্র করে মস্কোর সঙ্গে সহযোগিতা কমিয়ে দেওয়ার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। তবে বেইজিং তা উপেক্ষা করেই রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আরও জোরদার করছে।

চীন রাশিয়ার সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার। দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের পরিমাণ নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে। চীনের সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী করতেই বেইজিং সফরে গেছেন রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিশুস্তিন। তার সঙ্গে রয়েছেন দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার নোভাকও।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। তার পর প্রথমবারের মতো রাশিয়ার সর্বোচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা হিসেবে বেইজিং সফর করছেন মিশুস্তিন।চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং বলেছেন, দ্বিপক্ষীয় মূল স্বার্থ সংশ্লিষ্ট গুরুত্বপূর্ণ ইস্যুগুলোতে মস্কোর প্রতি ‘দৃঢ় সমর্থন’ দিয়ে যাবে তার দেশ। যদিও তার দেশের ওপর পাশ্চাত্যের চাপ অব্যাহত রয়েছে।

এক প্রতিবেদনে এ খবর দিয়েছে মস্কো টাইমস। এতে বলা হয়েছে, বেইজিং সফররত রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিশুস্তিনের সঙ্গে এক বৈঠকে চীন সরকারের এ অবস্থানের কথা জানান জিনপিং।

শি জিনপিং বলেন, বেইজিং ও মস্কোকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে ‘উচ্চ পর্যায়ের’ সহযোগিতা চালিয়ে যেতে হবে। দুই দেশের মধ্যে অর্থনৈতিক, বাণিজ্যিক ও পুঁজি বিনিয়োগ সংক্রান্ত সহযোগিতা শক্তিশালী করারও আহ্বান জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চীন ও রাশিয়ার মধ্যে অর্থনৈতিক ও কূটনৈতিক সহযোগিতা অন্যরকম উচ্চতায় পৌঁছেছে। ইউক্রেনে রাশিয়ার সামরিক অভিযানকে কেন্দ্র করে মস্কোর সঙ্গে সহযোগিতা কমিয়ে দেওয়ার জন্য পশ্চিমা দেশগুলোর পক্ষ থেকে চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে। তবে বেইজিং তা উপেক্ষা করেই রাশিয়ার সঙ্গে সম্পর্ক আরও জোরদার করছে।

চীন রাশিয়ার সবচেয়ে বড় বাণিজ্যিক অংশীদার। দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় বাণিজ্যের পরিমাণ নতুন রেকর্ড তৈরি করেছে। চীনের সঙ্গে সম্পর্ক শক্তিশালী করতেই বেইজিং সফরে গেছেন রাশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মিখাইল মিশুস্তিন। তার সঙ্গে রয়েছেন দেশটির উপপ্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার নোভাকও।

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে বিশেষ সামরিক অভিযান শুরু করে রাশিয়া। তার পর প্রথমবারের মতো রাশিয়ার সর্বোচ্চ পর্যায়ের কর্মকর্তা হিসেবে বেইজিং সফর করছেন মিশুস্তিন।

NO COMMENTS

LEAVE A REPLY